একটি সুন্নাহকে বাঁচাবো বলে: সালাম প্রদান!

সমাজে ভালোবাসা ও সম্প্রীতি ছড়িয়ে দেয়ার সহজতম পন্থা কী? এক কথায় সালামের প্রসার ঘটানো। নবীসি সা. বলেছেন:
-তোমরা মুমিন হওয়া ছাড়া জান্নাতে প্রবেশ করবে না। পরস্পর ভালোবাসাবাসি ছাড়া মুমিন হতে পারবে না। আমি কি তোমাদেরকে বলবো, কী করলে তোমার পরস্পরকে ভালোবাসতে পারবে? সালামের প্রসার ঘটাও!
(মুসলিম। আবু হুরাইরা র.)।

সালাম দেয়ার জন্যে চিনতে হয় না। চেনা-অচেনা ‘এলোপাথারি’ মারতে হবে। দেদারসে। মুক্তহস্তে। সামনে কোনও কিছুকে পেলেই হলো। সালাম।
.
ইয়া রাসূলাল্লাহ! ইসলামে শ্রেষ্ঠ আমল কোনটা?
-আহার দান করা। চেনা-অচেনা সবাইকে সালাম দেয়া।
.
সালাম দেয়ার সময় শব্দ যত বাড়াবো, সওয়াবও বাড়তে থাকবে:
= আসসালামু আলাইকুম: দশনেকি।
= আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহ: বিশ নেকি।
= আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু: ত্রিশ নেকি।
.
ঘরে প্রবেশের সময় সালাম দিবো। কর্মক্ষেত্রে গিয়ে সালাম দিবো। বাসে উঠার সময় চালককে সালাম দিবো। রিকশায় উঠতে সালাম দিবো। ভাড়া চুকিয়ে দেয়ার পর সালাম দিবো। সিএনজিতে উঠতে-নামতে সালাম দিবো। দোকানে প্রবেশ করে সালাম দিবো। বের হয়ে আসার সময় সালাম দিবো। মোবাইল ধরে সালাম দিবো। রাখার আগে সালাম দিবো। ইনশাআল্লাহ।

আমাদের শি‘আর (স্লোগান)হলো:
(إنْ تُطِيْعُوْهُ تَهْتَدُوْا):
যদি তার অনুসরণ করো, হেদায়াত পেয়ে যাবে (নূর: ৫৪)

একটি সুন্নাহকে বাঁচাবো বলে – শায়খ আতিকুল্লাহ

মানুষের জন্য প্রয়োজন আদর্শ ও নমুনা। আল্লাহ তাআলা মানুষের স্বভাবের মাঝে একটি শূন্যতা যেমন রেখেছেন তেমনি রেখেছেন পূর্ণতার একটি উপকরণ। শূন্যতাটি হচ্ছে, কোনো নমুনা ছাড়া মানুষ চলতে পারে না। আর পূর্ণতার উপকরণটি হচ্ছে অনুকরণের যোগ্যতা। স্বভাবগতভাবেই মানুষ অনুকরণপ্রিয়। অনুকরণের তার প্রয়োজনও আছে। স্বভাবের এই চাহিদা ও প্রয়োজনটি তখনই যথার্থরূপে পূরণ হয় যখন মানুষ জীবন ও কর্মের একটি উত্তম নমুনা খুঁজে পায় এবং তার অনুকরণ ও অনুসরণের তাওফীক-প্রাপ্ত হয়।

আল্লাহ তাআলা আমাদের জন্য সেই নমুনা বানিয়েছেন শেষ নবী, শ্রেষ্ঠ নবী হযরত মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে। তাঁর জীবন ও কর্ম, শিক্ষা ও আদর্শ মানবজাতির জন্য আসমানী নমুনা, যার অনুসরণ-অনুকরণের মধ্যেই মানুষের দো’জাহানের মুক্তি ও সাফল্য।

আল্লাহ তাআলা মানবজাতির হেদায়েতের জন্য যেমন আলকুরআনুল কারীম নাযিল করেছেন তেমনি কুরআনের শিক্ষা ও বিধানের বাস্তব রূপ হিসেবে দান করেছেন নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের সুন্নাহ ও উসওয়া। কুরআন মাজীদের শিক্ষা ও বিধানকে যখন সুন্নাহ ও উসওয়ার আলোকে জানা হবে ও মানা হবে তখন সেটাই হবে আল্লাহ তাআলার যথার্থ ফরমাবরদারী। এ ফরমাবরদারীর মাধ্যমেই মানুষের জীবন হয়ে উঠতে পারে সফল ও সুন্দর, নির্মল ও জ্যোতির্ময়।

জীবনের কোনো ক্ষেত্রই এই অন্বেষণ-অনুসরণের গণ্ডির বাইরে নয়। আমাদের চেতনা-বিশ্বাস, জীবন-দর্শন, জীবন বোধ, উৎসব-উপাসনা, পারস্পরিক সম্পর্ক, বিয়ে-শাদী, লেনদেন, নীতি-নৈতিকতা, আইন-বিচার, সবকিছুই এই অন্বেষণ-অনুসরণের গণ্ডির ভিতরে।

একটি সুন্নাহকে বাঁচাব বলে সিরিজের সকল পর্ব

Facebook Comments