এ সত্য আপনাকে শক্তি যোগাবে ধৈর্য ধারন করার ।

553
true ধৈর্য

ইমাম আহমদ,আন নাসায়ী,ইবনে হিব্বান,আল হাকিম,আল বাযযার আবু হুরাইরা রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ননা করেছেন একবার এক বেদুঈন রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের সামনে দিয়ে হেটে যাচ্ছিল রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তাকে প্রশ্ন করলেন তুমি কি কখনো ‘উম্ম মিলদাম’ দ্বারা আক্রান্ত হয়েছিলে ?লোকটি বলল, উম্ম মিলদাম কি?রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন উম্ম মিলদাম হল এক প্রকার জ্বর যা চামড়া ও হাড়ের মাঝে প্রবেশ করে। অর্থাৎ জ্বর,,,
এ বেদুইন লোকটির জীবনে কখনো জ্বর হয় নি এমনকি সে জানতই না যে জ্বর কি।
পরের প্রশ্নটি শুনুন রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম পুনরায় লোকটিকে জিজ্ঞাসা করলেন তোমার কি কখনও মাথাব্যাথা হয়েছে?

সে বলল মাথাব্যাথা কি? রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন এটা হল এক প্রকার স্নায়ু যার কারনে মাথার ভেতর ব্যাথা অনুভুত হয় , লোকটি বলল , না, এটা আমার কখনোই হয় নি, মাথাব্যাথা কি সেটাই এই লোক জানতো না।
লোকটি চলে যাবার পর রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন কেউ যদি কোন জাহান্নামি ব্যাক্তিকে দেখতে চায় তবে সে যেন একে দেখে নেয়।


এটা পড়ুন এক মূহুর্তের রাগ, সারা জীবনের কান্না।


সবসময় ব্যাপার এই রকম না হলেও অধিকাংশ ক্ষেত্রে এটা প্রযোজ্য।
সহীহ হাদীসে এসেছে, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন মুমিন হল গাছের কচি ডালের মতো, যেভাবে কচি ডালকে বাতাস একবার ডানে , একবার বামে নাড়া দেয় মুমিনের জীবনে পরীক্ষাগুলোর ভুমিকাও ঠিক একই রকম।

কোন ব্যাক্তি যদি জীবনে কখনো পরীক্ষার সম্মুখীন না হয় তবে সাধারনত এর অর্থ হল আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তা’য়ালা ঐ ব্যাক্তিকে তার অবস্থার উপরে ছেড়ে দিতে চান। হয়তো সে জাহান্নমি হবে ( আউযু বিল্লাহ মিন যালিক) অথবা সে জান্নাতে নিম্ন মর্যাদার অধিকারী হবে। কিন্তু সে আল্লাহর নৈকট্যপ্রাপ্ত বান্দাদের অন্তর্ভুক্ত হবে না।
এরকম একজন ব্যক্তির মর্যাদা কখনোই তাদের সমান হবে না যারা পরীক্ষার সম্মুখীন হয়েছে।
আল্লাহ্ না করুন যদি কখনো আপনার উপর কোন বিপর্যয় আপতিত হয় তবে এ সত্য আপনাকে শক্তি যোগাবে ধৈর্য ধারন করার ও দৃঢ়তার সাথে বিপর্যয়ের মোকাবেলা করার।

Facebook Comments